শুক্রবার

১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
spot_img

রাষ্ট্রব্যবস্থা সংস্কারের আন্দোলন এগিয়ে নেওয়ার আহ্বান গণতন্ত্র মঞ্চের

বর্তমান সরকারের পদত্যাগ ও একটা অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন এবং সেই সরকারের উদ্যোগে একটা সুষ্ঠু নির্বাচন করে রাষ্ট্র ব্যবস্থা সংস্কারের চলমান আন্দোলন এগিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন গণতন্ত্র মঞ্চের সমন্বয়ক ও রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইয়ূম।

আজ শনিবার দুপুরে রাজধানীর পল্টন মোড়ে যুগপৎ আন্দোলনের ১৪ দফা দাবিতে গণতন্ত্র মঞ্চের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান তিনি।

রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের সাংগঠনিক সমন্বয়ক ইমরান ইমনের পরিচালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর, জেএসডির সহসভাপতি অ্যাডভোকেট কে এম জাবির প্রমুখ।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিশাল বহর নিয়ে জনগণের টাকায় দেশ-বিদেশে ঘুরছেন তার ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার জন্য, কিন্তু তাতে মানুষের কী লাভ হয়েছে? সরকার যতই তালবাহানা করুক, শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচন হবে না। গণতন্ত্র মঞ্চসহ যুগপৎ আন্দোলনে যারা আছেন কেউ তার অধীনে কোনো নির্বাচনে যাবে না। প্রধানমন্ত্রী অনেক সময় অনেক ওয়াদা করেছেন, কিন্তু কখনোই কথা রাখেন না। তার কথায় আর কারও আস্থা নেই। উনাকে ক্ষমতা ছেড়ে দিতেই হবে।

সাইফুল হক বলেন, সারা দেশে মানুষের ওপর হামলা-মামলা করে আন্দোলন থেকে বিরত রাখতে চায়। কিন্তু মানুষের সামনে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই সরকারের পতন নিশ্চিত করা ছাড়া উপায় নেই।

জোনায়েদ সাকি বলেন, বর্তমান রাষ্ট্রব্যবস্থায় ক্ষমতার সুষ্ঠু বণ্টন নেই। গণতন্ত্র মঞ্চ স্পষ্ট করেছে রাষ্ট্রের ক্ষমতা কার কাছে কতটা থাকবে, কীভাবে বণ্টন হবে- তার কাঠামো ঠিক করতে হবে। রাষ্ট্রের কাঠামোগত সংস্কার না করলে আমাদের সংকটের সমাধান হবে না।

শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ১৪ বছর ধরে মানুষের ওপর জুলুম-নির্যাতন চালাচ্ছে। গণতন্ত্র মঞ্চ সুনির্দিষ্ট কর্মসূচির ভিত্তিতে অবিলম্বে বৃহত্তর আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করবে।

নুরুল হক নুর বলেন, বর্তমান সরকার উন্নয়নের নামে লুটপাট চালিয়ে যাচ্ছে এবং পাচার করছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম এমন পর্যায়ে গেছে সাধারণ মানুষের সংসার চালানোই মুশকিল হয়ে গেছে। সংকট উত্তোরণে অবিলম্বে অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে।

মানববন্ধনে নাগরিক ঐক্যের শহিদুল্লাহ কায়সার, জেএসডির কামাল পাটোয়ারী, মোশারফ হোসেন মন্টু, গণঅধিকার পরিষদের রাশেদ খান, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির মীর মোফাজ্জল হোসেন মোস্তাক, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের সৈয়দ হাসিব উদ্দিন হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

spot_img

এ বিভাগের আরও সংবাদ

spot_img

সর্বশেষ সংবাদ

spot_img